নারীর নির্লিপ্ত ঘৃণা (Narir Nirlipto Ghrina)

মাঝখানে দেওয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে আছো তুমি
আর কিচ্ছু দেখতে পাই না।
ইচ্ছে তো হয়
তোমার ওপারে আরও কি আছে দেখি!
পারি না।
উঁচু এক পাহাড় হয়ে সব ঢেকেছো তুমি।

অথচ কথা ছিলো
ভালোবাসলে জগৎটা আরও বেশি আপন মনে হবে
সুন্দর মনে হবে।
অথচ পূর্ণিমা এলে জ্যোৎস্না দেখি না
তোমার কালোচোখের ঝিলিক দেখি।
বসন্ত এলে কোকিলের কুহুরব শুনি না
তোমার কাঁকণের ঝনঝন শুনি।

তবুও যদি একটু ভালোবাসতে!
সব কেড়ে নিয়ে নিঃস্ব একাকী করে দিলে
অথচ একটু ভালোবাসা দিলে না।
ঠোঁটের কোনে হাসি হেসে
অনুচ্চারিত প্রতিশ্রুতি দিলেও
কখনো একটু ভালোবাসা দিলে না।

আর কতদিন নিঃসঙ্গ প্রেমহীন থাকবো মালবিকা?
বুকে ঘৃণা নিয়েও যদি বলতে
"ভালোবাসি! তোমাকে ভালোবাসি অমল! "
আমি কি আর বুঝতাম
কত গভীর ঘৃণা করো তুমি?
তোমার চোখের কোণের ঝিলিককে যদি
আলোর পথ ভাবতে পারি;
তোমার বলা "ভালোবাসি" শব্দকে
জীবনের পাথেয় ভাবতে পারবো না?

ঘেঁষে ঘেঁষে পাশে বসে
এতো তো উশখুশ করি, ফিসফিস করি
একবারও "ভালোবাসি" কথাটা বলতে পারো না?

এতো ঘৃণা করো
তবুও উঁচু পাহাড় হয়ে সব ঢেকেছো তুমি!
পৃথিবীকে পৃথিবী দেখতে দাও না
স্বপ্নকে স্বপ্ন দেখতে দাও না
আমাকে আমি দেখতে দাও না।

বলতে পারো হে মালবিকা
আর কতদিন আমি
তোমার নির্লিপ্ত ঘৃণা বুকে বাঁচবো?

© অরুণ মাজী
Painting: Eugene De Blaas

by Arun Maji

Comments (0)

There is no comment submitted by members.