(3 April 1593 – 1 March 1633 / Montgomery, Wales)

Primeval Sea

Out of the sea primeval;
Leaving lightning and dense electricity
Down in Neptune's reign; here in
The gardens of relative paradise
Weather is quiet; there be
No roars of thundering.
The twisted sirens float
Casually on the sea face
Sea bosom by accident and
Probability; we caroused by night
And at first light went to
Sleep the day profound.
For carousal of the night
The lights of the sun were
Lost upon us.
When we woke we had the
Very edge of sunset then
The dusk.
Then
The night.

Iron seas
Morphed fishes
Continually
Rocks
Heights
Liquid
Giddying
Still
Gulping
Waters
Immense
Fish
Flying
Through
Some
Slow
More
Slow
Predators
And
Victims
Law
Of
Survival
Bleak
And
Raw
In
The
Seas
Night
Soon
Comes
Every
Day
The dark
Relative
Grows
Darker
Darker
Darker
The
Sea-waves
Up
On
The
Beaches
Rustling
Rustling
Rustling
In
The
Sperm
Of
Night

Out of the sea primeval;
Leaving lightning and dense electricity
Down in Neptune's reign; here in
The gardens of relative paradise
Weather is quiet; there be
No roars of thundering.
The twisted sirens float
Casually on the sea face
Sea bosom by accident and
Probability; we caroused by night
And at first light went to
Sleep the day profound.
For carousal of the night
The lights of the sun were
Lost upon us.
When we woke we had the
Very edge of sunset then
The dusk.
Then
The night.

User Rating: 5 / 5 ( 0 votes ) 7

Comments (7)

Profound..but I'm a small child still struggling with words and your verses too profound, they come from a depth beyond my comprehension..salute
So profound...but I am a small child still struggling with words and you lines come from a depth thats beyond me today...salute Best regards Seema
But I am frailty, and already dust; O do not grind me! Beautiful truth of a poet-nature illustrated with skilled craft.
A Solemn prayer for relief and reformation. i love it
Beautiful Prayer Poetry. I've bengalized(Translated into Bengali) this poem for my native readers. Here is the Bengali Version: দীর্ঘশ্বাস ও আর্তনাদসমূহ ।। জর্জ হার্বাট . সমূহ পাপাচারের পর আমাকে আর টেনো না হে, তাকাইও না এ মরুশূন্যতায়. বরং লক্ষ্য করো তোমার গরিমা! তখন তুমিই পুনর্গঠন করবে আর অস্বীকার করবে না আমাকে: কেননা একমাত্র তুমিই পরাক্রমশালী ঈশ্বর, অথচ নগণ্য এক কীট আমি; আমায় চূর্ণ কোরো না হে! আমায় তাড়া দিও না হে! কেননা তোমার এক অপুষ্ট গোমস্তা কী এমন সুফল আনতে পারে? অপব্যবহার করেছি তোমার মজুদসম্পদ, ধ্বংস করেছি বনভূমি, তোমার শস্যগোলা চেটেপুটে খেয়েছি: মাথা ব্যথা করছিলো আমার, তবুও তোমার পণ্যরাশি গ্রাস করার উপায় খুঁজেছি: কশাঘাত কোরো না হে আমাকে! আমাকে অন্ধ করে দিও না হে! আমার প্রাপ্য ছিলো এই যে, মিশরীয় এক রজনীর উচিত আমার ক্ষমতাসমূহকে পুষ্ট করা; কারণ আমার লালসা তোমার দ্যুতিকে অগ্রাহ্য করতে এখন অব্দি সেলাই করেছে ডুমুর পাতা: অথচ ভঙ্গুর আমি, আর এরই মধ্যে মিশে গেছি ধুলায়; আমায় চূর্ণবিচূর্ণ কোরো না হে! আমায় পূর্ণ কোরো না হে তোমার তিক্ত ক্রোধের ভরা বোতল নিংড়ে ঢেলে! কেননা রক্তভরা পিপাও রয়েছে তোমার হাতে, যার একটা অংশ আমার ত্রাতা খরচ করে ফেলেছে, এমনকি মৃত্যু-অব্দি: যদিও মরেছে আমার মঙ্গলার্থে, আমাকে মৃত্যু দিও না হে! বরং আমাকে দাও হে অবকাশ কেননা জীবন ও মৃত্যু আছে তোমারই নির্দেশাধীন; বিচারক ও ত্রাতা দুটোই তুমি, টোপ ও বড়শী, স্নেহপরবশ ও ধ্বংসকারী: রেখো না তোমার হাত তিক্ততাভরা বাক্সে, বরং হে ঈশ্বর আমার, আমার মালিক, পরিত্রাণ দাও আমাকে! . বাঙলায়ন: রহমান হেনরী
See More